সকাল ৭:৩৩,   শনিবার,   ১৬ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং,   ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,   ১৭ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
 

অনিন্দ্য সুন্দর এবং গতিশীল জেলা আওয়ামীলীগ গড়তে সুজাত আলী রফিকের বিকল্প নেই

নিউজ ডেস্ক:
উনি সুদর্শন নয়, শ্যামবর্ণের। উচ্চতায় হয়তো বিশালদেহের অধিকারী না। যোগ্যতার মাপকাঠিতে উনি উনার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন দ্বারাই স্বীকৃত। তবে আমি যে জায়গায় সবথেকে বেশী আত্নবিশ্বাসী, উনি পরিশ্রম করতে পারেন। কাকডাকা ভোর, মুষলধারে বৃষ্টি কিংবা পৌষ্যের হিমেল হাওয়ায়, প্রতিটি সময়ে ঠাই দু-পায়ে দাড়িয়ে থাকার শক্তি রাখেন দৃঢ় সংকল্পে। উনি দ্রোহের কবি নজরুলের ,

থাকিতে চরণ মরণে কি ভয়, নিমেষে যোজন ফর্সা!
মরণ-হরণ নিখিল-শরণ জয় শ্রীচরণ ভরসা।।

লাইনগুলো অন্তরে ধারণ করেন। তিনি আর কেউ নয় শহরতলী টুকের বাজারের কান্দিগাঁও ইউনিয়নের মনোহরপুর(গোপাল) গ্রামে জন্ম নেয়া সুজাত আলী রফিক। শৈশবকাল থেকে যিনি পারিবারিকভাবে অসাম্প্রদায়িক চেতনা ধারণের শিক্ষা লাভ করেছেন। যার রাজনীতির হাতেখড়ি স্কুল জীবন থেকে। যার জীবন যৌবন অতিবাহিত হচ্ছে একজন মানুষকে ধারণ করে তিনি আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যার আদর্শকে ধারণ করে অনেক বিপদ, বিপত্তির সম্মুখীন হয়েও উনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের উপর অবিচল ও অটল। যার শৈশবের উচ্ছাস, কৈশরের প্রেম, আর যৌবনের ভালবাসা, যার প্রথম প্রেম, প্রথম নেশা, প্রথম আবেগ, প্রথম ভাললাগা,যার প্রথম স্লোগান,প্রথম রাজপথ, প্রথম প্রতিবাদ, ভালবাসা এবং আবেগের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের হাত ধরে। ৮৫-৯০ এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে যার স্লোগানে প্রকম্পিত হয়েছিলো সিলেটের পিচঢালা রাস্তা, স্বৈরাচার নিপাক যাক গণতন্ত্র মুক্তি পাক, স্বৈরাচারীর গদিতে আগুন জ্বালো একসাথে। স্বৈরশাসনের এর কঠিন সময় শাসকের রক্তচুক্ষকে ভয়হীনভাবে মোকাবেলা করেছিলেন অসংখ্যবার নির্যাতনের পরেও যার বজ্রধ্বনি ছিলো, মুজিব কন্যা শেখ হাসিনা বাংলা তোমায় ডাকছে এসো। একজন নেতা হতে হলে তার মধ্যে যে জিনিসগুলো লাগে তা হলো সততা, সৎ সাহস, কারিশমা, ন্যায়পরায়ণতা,বিশ্বাস,স্বচ্ছতা এবং বিচক্ষতা এই সকল গুণাবলি উনার মধ্যে বিদ্যমান। তাই শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ড হিসাবে সিলেট জেলা আওয়ামীলীগকে আরোও শক্তিশালী, গতিশীল এবং সৃজনশীল করতে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে অধ্যাপক সুজাত আলী রফিক ভাই- হোক সবার পছন্দ। সুজাত আলী রফিক ভাইয়ের হাত ধরে এগিয়ে যাবে মুক্তিযুদ্ধের একমাত্র সংগঠন হাজার তৃণমূল কর্মীর প্রাণের স্পন্দন সিলেট জেলা আওয়ামীলীগ।

আপনার নিরন্তর সত্যের পথচলায় আগামী সিলেট জেলা আওয়ামীলীগ এর সম্মেলনে আপনাকে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দেখতে চাই।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে এভাবেই নিজের অনুভূতি ব্যাক্ত করলেন সিলেট তৃণমূলের ক্ষুদ্র কর্মী পারভেজ আহমেদ।


আবহাওয়া

সিলেট
18°

অ্যাপস

সামাজিক নেটওয়ার্ক

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি