রাত ৪:২৭,   মঙ্গলবার,   ২০শে আগস্ট, ২০১৯ ইং,   ৫ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,   ১৭ই জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী
 

আকস্মিক বাস চলাচল বন্ধে চট্টগ্রামে যাত্রীদের দেড়ঘণ্টার দুর্ভোগ

রিপোর্ট ডেস্ক:
আকস্মিক বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়ায় নগরী থেকে দক্ষিণ চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজারের ঘরমুখো শত শত যাত্রীকে প্রায় দেড়ঘণ্টা ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের সময় পরিবহন সংশ্লিষ্ট এক নেতার সঙ্গে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের দুর্ব্যবহারের প্রতিবাদে দক্ষিণ চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার রুটে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল বাস চলাচল।

রোববার (১১ আগস্ট) বিকেল ৩টা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত বন্ধ থাকার পর প্রশাসনের উচ্চপর্যায়ের হস্তক্ষেপে আবারও বাস চলাচল শুরু হয়।

বহদ্দারহাট বাস টার্মিনালে বাঁশখালী রুটের বাঁশখালী এক্সপ্রেস নামে একটি পরিবহনের কাউন্টারে অভিযান চালান বিআরটিএ’র ম্যাজিস্ট্রেট। বাড়তি ভাড়া নেওয়ার অভিযোগে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চলাকালে সেখানে যান দক্ষিণ চট্টগ্রাম পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সদস্য সচিব মো. মহিউদ্দিন। এসময় তার সঙ্গে ম্যাজিস্ট্রেটের দুর্ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে।

‘ম্যাজিস্ট্রেট অত্যন্ত অশোভন আচরণ করেছেন। মহিউদ্দিনকে ধাক্কা দিয়ে কাউন্টার থেকে বের করে দিয়েছেন। সেটা দেখে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছিল। পরে প্রশাসনের উচ্চপর্যায়ের অনুরোধে এবং ঈদের আগেরদিন যাত্রীদের ভোগান্তির কথা বিবেচনায় নিয়ে বাস চলাচল শুরু করা হয়।’

এদিকে আকস্মিক ধর্মঘট ডেকে বহদ্দারহাট বাস টার্মিনাল থেকে দক্ষিণ চট্টগ্রামের অন্তত ৬ উপজেলার বাস চলাচল বন্ধ করে দেয় পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা। দক্ষিণ চট্টগ্রামের সঙ্গে মহানগরীর সংযোগস্থল শাহ আমানত সেতুতে অবস্থান নিয়ে বাস চলাচলে বাধা দেয় শ্রমিকরা। একইভাবে দক্ষিণ চট্টগ্রামের সঙ্গে আরেকটি সংযোগস্থল কালুরঘাট সেতু দিয়ে যানবাহন চলাচলে বাধা দেয় শ্রমিকরা।

এতে দুর্ভোগে পড়েন ঈদ উপলক্ষে ঘরমুখো শত শত যাত্রী। প্রচণ্ড গরমের মধ্যে অনেককে বাসের ভেতরে বসে থাকতে দেখা গেছে। বাস না পেয়ে নগরীর প্রবেশপথ শাহ আমানত সেতু এলাকায় ঠাঁই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে সাধারণ লোকজনকে।


আবহাওয়া

সিলেট
27°

অ্যাপস

সামাজিক নেটওয়ার্ক

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি