দুপুর ১২:৫০,   বুধবার,   ২৪শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং,   ১১ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,   ১৭ই শাবান, ১৪৪০ হিজরী
 

আজ ফেসবুকের ১৫তম জন্মদিন

অনলাইন রিপোর্ট:
২০০৪ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক পর্যায়ের এক শিক্ষার্থী একটি ওয়েবসাইট চালু করেন। উদ্দেশ্য ছিল তার সমবয়সী অন্য শিক্ষার্থীরা যেন অনলাইনে নিজেদের মধ্যে যুক্ত থাকতে পারে।

পরবর্তীতে সিএনবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ওয়েবসাইট চালু করা ওই শিক্ষার্থী জানান, তিনি ভেবেছিলেন ৪০০-৫০০ মানুষ এটা চালাতে আগ্রহী হতে পারে।

খুব সম্ভবত বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভুল ধারণা ছিল এটাই। কারণ ওই ওয়েবসাইটটি ছিল ফেসবুক। আর স্নাতক পর্যায়ের সেই শিক্ষার্থী ছিলেন মার্ক জাকারবার্গ যাকে বর্তমানে বিশ্বের প্রায় সব মানুষ এক নামে চেনে।

সবচেয়ে বড় ভুল ধারণা বলার কারণ হলো বর্তমানে ফেসবুকের গ্রাহক সংখ্যা প্রায় ২৪০ কোটি। যেখানে কীনা জাকারবার্গ ভেবেছিলেন তার এই ওয়েবসাইট ৪০০-৫০০ মানুষ ব্যবহার করতে পারে।

আজ ৪ ফেব্রুয়ারি ফেসবুকের পনেরো বছর পূর্তি। কাল থেকে ষোলোতে পা রাখতে যাচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি।

কৈশোরে ফেসবুক
ফেসবুক তার কৈশোর পার করছে। ভারতীয় প্রযুক্তিভিত্তিক গণমাধ্যম গেজেটস নাউয়ের প্রতিবেদনে বলা হয়, কিশোর বয়সে থাকা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ওয়েবসাইট এটা। এর বার্ষিক রাজস্ব আয় ৫৬ বিলিয়ন ডলার এবং মুনাফা ২২ বিলিয়ন ডলার। বর্তমানে বিজ্ঞাপন থেকে আয়ের ক্ষেত্রে সার্চ জায়ান্ট গুগলকে চ্যালেঞ্জের মধ্যে ফেলে দিচ্ছে ফেসবুক।

প্রবলেম চাইল্ড
ফেসবুক খুব ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু গত বছরটা তাদের সেই অগ্রযাত্রায় কিছুটা নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। একের পর এক তথ্য ছুরির ঘটনা প্রতিষ্ঠানটিকে বেকায়দায় ফেলে দেয়ার পাশাপাশি গ্রাহকদের আস্থাও কিছুটা কমিয়েছে। এ কারণে প্রতীকী অর্থে বলা হচ্ছে ফেসবুক প্রবলেম চাইল্ড কিনা।

সংকট কাটবে?
এই জন্মদিনে ফেসবুকের সামনে প্রশ্ন হলো, প্রতিষ্ঠানটি কী গত বছরের সংকট কাটিয়ে উঠতে পারবে? ইতোমধ্যে জাকারবার্গ জানিয়েছেন, ফেসবুকের সব ধরনের সমস্যা সমাধানে কাজ শুরু করেছেন তিনি। ফলে এ বছর হয়তো সংকট কাটিয়ে উঠতে পারবে ফেসবুক। তবে কেউ কেউ ধারণা করছেন সংকট আরও বাড়তে পারে।


আবহাওয়া

সিলেট
37°

অ্যাপস

সামাজিক নেটওয়ার্ক

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি