সকাল ৭:০৩,   মঙ্গলবার,   ২৩শে জুলাই, ২০১৯ ইং,   ৮ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,   ১৮ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী
 

চুরি হওয়া কোটি টাকার সরকারি ওষুধ জব্দ, আটক ১

অনলাইন ডেস্ক:
বগুড়ায় বিক্রয় নিষিদ্ধ সরকারি প্রায় কোটি টাকার বিভিন্ন ওষুধ উদ্ধারসহ এক ওষুধ ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। বগুড়া শহরের মফিজ পাগলা মোড় থেকে রোববার সকালে রবিন ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল নামের পাইকারি ওষুধের গুদাম থেকে বিপুল পরিমাণ চোরাই সরকারি ওষুধ উদ্ধার করে বগুড়া সদর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় পাইকারি ওষুধের ব্যবসায়ী ও গুদামের মালিক মিজানুর রহমান রবিনকে (২৬) পুলিশ গ্রেপ্তার করে। সে জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলার চৌকিবাড়ি গ্রামের মো. আবদুর রফিকের পুত্র।

বগুড়া সদর থানার ওসি বদিউজ্জামান জানান, শনিবার রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সদর থানার এসআই আবু তাহের ওষুধ ব্যবসার প্রতিষ্ঠান রবিন ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের গুদামের দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ তলার তিনটি ফ্লোরের গুদামে বিপুল পরিমান সরকারি ওষুধ রয়েছে জেনে তালা দেয়। এরপর সে জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানান। ওষুধ ব্যবসায়ী রবিনকে শনিবার রাত ১২টায় তার প্রতিষ্ঠানের সামনে থেকে আটক করে তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে রোববার বেলা ১২ টায় সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে তিনটি ফ্লোরের তালা খুলে বিপুল পরিমাণ ওষুধ উদ্ধার করা হয়। এই তিনটি গুদামে কয়েক প্রকার সরকারি ওষুধ ছিল। প্রায় দুটি বড় ট্রাকে করে ওষুধগুলো থানায় নেয়া হয়। এ ঘটনায় আটক করা হয়েছে ওষুধ ব্যবসায়ি মিজানুর রহমান রবিনকে। তার বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। ওষুধের তালিকা করা হচ্ছে। তালিকা তৈরি হলে প্রকৃত দাম বলা যাবে। তবে প্রাথমিকভাবে কোটি টাকা হতে পারে ওষুধের দাম।

বগুড়ার জেলার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. সামির হোসেন মিশু বাংলাদেশ জার্নালকে জানান, ওষুধগুলো সরকারি। হাসপাতালে সরবরাহের আগে বিক্রি হয়ে থাকতে পারে। ওষুধগুলোর মধ্যে রয়েছে এন্টিবায়েটিক সিপ্রোফ্লকসাসিন, (ইনজেকশন ও ট্যাবলেট ফরমেট), সেপট্রিক্সজন, সেফোরোক্সসাইম, ওপিপ্রাজল, ইসমিপ্রাজল, অটোক্লেভ মেশিন, ইসোরাল, কিটোরোলাক ট্রোমেথামিন ইনজেকশন, সেফিক্সিম ক্যাপসুল, লোসেকটিল, অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ বিভিন্ন প্রকার ওষুধ রয়েছে। ধারণা যে পরিমান ওষুধ পাওয়া গেছে তাতে কোটি টাকা দাম ছাড়িয়ে যাবে।

রবিন ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল নামের প্রতিষ্ঠানের মালিক রবিন জানান, দেশের বিভিন্ন মেডিকেল কলেজের ওষুধ সরবরাহ প্রতিষ্ঠানগুলো তার কাছে ওষুধ বিক্রি করেছে। ওষুধগুলোর মধ্যে রয়েছে এ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ জীবন রক্ষাকারীসহ কিছু দামি ওষুধ রয়েছে।

বগুড়ার ড্রাগ সুপার আহসান হাবীব জানান, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সরকারি ওষুধ দেখতে পান। ওষুধগুলো উদ্ধারের পর বগুড়া সদর থানায় নেয়া হয়েছে। সেখানে তালিকা করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।


আবহাওয়া

সিলেট
26°

অ্যাপস

সামাজিক নেটওয়ার্ক

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি