সকাল ১০:২০,   মঙ্গলবার,   ১০ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং,   ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,   ১১ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
 

পাঙ্গাস-তেলাপিয়াতেই ক্রেতা-বিক্রেতার ভরসা

অনলাইন ডেস্ক::
মা ইলিশ সংরক্ষণে সারাদেশে নদ-নদীতে মাছ ধরা বন্ধ থাকায় পিরোজপুরের ক্রেতা-বিক্রেতাদের ভরসা এখন ঘেরের পাঙ্গাস আর তেলাপিয়া।

পিরোজপুর সদর, স্বরূপকাঠী, কাউখালী, ভান্ডারিয়া, ইন্দুরকানী, মঠবাড়িয়ার বিভিন্ন হাট-বাজারগুলোতে ও দক্ষিণাঞ্চলের দ্বিতীয় বৃহত্তম পিরোজপুরের পড়েরহাট মৎস্য বন্দরে গিয়ে দেখা যায়, সাগর ও নদীর ইলিশসহ অন্যান্য প্রজাতির মাছ এখানে নেই বললেই চলে। আর তাই ক্রেতাদের একমাত্র ভরসা ঘেরে চাষ করা পাঙ্গাস, তেলাপিয়া, রুই ও কাতলা।

জানা গেছে, সরকারের নির্দেশ মেনে গত ৭ অক্টোবর রাতেই গভীর সমুদ্র থেকে মাছ ধরা বন্ধ করে ঘাটে ফিরে আসে জেলার পাড়েরহাট, ইন্দুরকানী, ভান্ডারিয়া, মঠবাড়িয়ার মৎস্যজীবীরা। শুধু সমুদ্রে মাছ ধরা ট্রলারই নয়, স্থানীয় জেলেরাও ওই রাত থেকে কঁচা, সন্ধ্যা, বলেশ্বর, কালিগঙ্গা, ভেলুয়া, তালতলা ও মধুমতি নদীতে মাছ ধরা বন্ধ রেখেছে।

আজ শনিবার সরেজমিনে পিরোজপুর শহরের মাছ বাজারে গিয়ে দেখা যায়, অধিকাংশ ক্রেতারাই পাঙ্গাস কিনছেন। প্রতি কেজি পাঙ্গাস ১২০ থেকে ১৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

মাছ ব্যবসায়ী মো. ইকবাল হোসেন উকিল জানান, নদীতে মাছ ধরা বন্ধ হওয়ায় ঘেরের পাঙ্গাস সংগ্রহ করে বিক্রি করে ব্যবসা টিকিয়ে রাখছেন।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মোশাররফ হোসেন জানান, নিষেধাজ্ঞার ভেতর ইলিশ ধরার অপরাধে ইতোমধ্যে ৬ জেলেকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এছাড়া জেলার বিভিন্ন উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদফতর যৌথ অভিযান চালিয়ে গত ৭ দিনে প্রায় ১৯ লাখ টাকার অবৈধ কারেন্ট জাল আটক করে পুড়িয়ে দিয়েছে।


আবহাওয়া

সিলেট
20°

অ্যাপস

সামাজিক নেটওয়ার্ক

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি