সকাল ৭:১৭,   মঙ্গলবার,   ২৩শে জুলাই, ২০১৯ ইং,   ৮ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,   ১৮ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী
 

বিয়ানীবাজারের ডিএম হাই স্কুলের সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠান সম্পন্ন

অনলাইন রিপোর্ট:
অনেক জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নানা প্রতিকূলতা অতিক্রম করে ব্রিটেনে বসবাসরত সিলেট জেলার বিয়ানীবাজার উপজেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকা উত্তর মোহাম্মদ পুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের দীর্ঘ দিনের লালিত স্বপ্ন ডি এম হাইস্কুলের ইতিহাসে সর্বপ্রথম সুবর্ণ জয়ন্তী এবং প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা অনুষ্ঠান বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যে একযোগে সফল ভাবে সম্পন্ন হয়েছে । বিশ্বের ইতিহাসে সর্বপ্রথম পদ-পদবী বিহীন এরকম একটি সার্বজনীন অনুষ্ঠান সফলতার সহিত আয়োজন করে ডি এম পরিবার এক নতুন ইতিহাসের সুচনা করলো ।

“এসো স্মৃতির অঙ্গনে মিলি প্রীতির বন্দনে”, এই স্লোগানকে বুকে ধারণ করে সিলেট জেলার বিয়ানীবাজার উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ডি এম হাইস্কুলের সুবর্ণ জয়ন্তী এবং প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সর্বপ্রথম মিলনমেলা গত ৭ই এপ্রিল লন্ডনের Upminster এলাকার New Windmilll Hall এ কোন পদ-পদবী ছাড়াই প্রায় চার শতাদিক প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সতস্ফুর্ত অংশগ্রহণে অনুষ্টিত হয়েছে । জনাব সামসুল ইসলাম চৌধুরীর কোরআন তেলাওতের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানটিতে সুচনা বক্তব্য প্রদান করেন জনাব সরোয়ার হোসেন খাঁন । ডি এম হাইস্কুলের স্মৃতি চারণ করে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেনঃ ডিএম স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষক মো: আব্দুল খালেক, প্রাক্তন ছাত্র ছায়ীদ আহমদ চৌধুরী সবুজ, শাহিন আহমদ, লায়েক হোসেন চৌধুরী, সাব্বির হোসেন চৌধুরী, রেজোয়ান কবির চৌধুরী শাহান, তারেক হোসেন মুসা, আনোয়ার হোসেন আনাই, লুবেক আহমদ চৌধুরী, গুলজার আহমদ প্রমুখ।

বিশেষ অতিতীদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন সাবেক ডেপুটি মেয়র অহিদ আহমদ, সাবেক মেয়র পারভেজ আহমদ, বৃটিশ বাংলাদেশী কমিউনিটির বিশিষ্ট মুরব্বী তাহের চৌধুরী, বৃটিশ বাংলাদেশী বিজনেস ফোরামের সভাপতি ফয়সাল আহমদ চৌধুরী, ইরাক আহমদ চৌধুরী কাউন্সিলার লুটন কাউন্সিল এবং ডিএম স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী সারওয়ার খানের নিমন্ত্রণে- লেবার পার্টির বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ উমেশ দেশাই, এম এম লন্ডন ওয়েষ্ট সিটি এসেম্বলি মেম্বার হাবিব হুসেইন, কাউন্সিলর টাওয়ার হেমলেট লন্ডন ইকবাল হুসেইন, আহবাব হোসেন সহ অনেক বিশিষ্ট গণ্যমান্য নেতৃবৃন্দ।

আয়োজিত অনুষ্ঠানে সকল প্রাক্তন শিক্ষার্থী তাদের পরিবার নিয়ে উপস্থিত হন। শত-শত শিক্ষার্থীর উপস্থিতিতে ব্রিটেনের আপমিনিষ্টারের হলটি যেন এক খন্ড বাংলাদেশে পরিণত হয়ে উঠে।

অনুষ্টানের শেষ পর্বে সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে আকর্ষণীয় মনোমুগ্ধকর এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে গান পরিবেশন করেন যুক্তরাজ্যের বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী রওশনারা মুন্নী এবং তাঁর দল।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, এই স্কুলের পঞ্চাশ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পেরে আমরা নিজেকে গর্বিত মনে করি। আনন্দ উল্লাস করে হারানো দিনের স্মৃতি চারণ করতে পেরে আমরা পুলোকিত। “স্মৃতির অঙ্গনে প্রীতির বন্ধনে” আমরা মিলিত হলাম। একটি দিনের জন্য হলেও স্কুল জীবনের স্মৃতি চারণ করতে পারলাম যা স্মরণীয় হয়ে থাকবে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন জানান। ডি এম হাইস্কুল প্রতিষ্ঠার জন্য যারা নিজের ধন-দৌলত, মেধা পরিশ্রম, জায়গা-জমি দান করেছিলেন আজ যারা বেচে নেই তাদের স্মৃতিকে স্মরন করে তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করা হয়। যারা জীবিত আছেন তাদের দীর্ঘায়ু ও সর্বাঙ্গীন মঙ্গল কামনা করে দোয়া করা হয়। বক্তারা তাদের বক্তব্যে ঐতিহ্যবাহী ডি এম হাইস্কুলের উন্নতির জন্য তাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে জানান। পরিশেষে বিদ্যালয়ের ১৯৭৭ সনের ছাত্র জনাব গৌছুল বারী চৌধুরী সমাপনী বক্তব্য প্রধান করেন ।

এদিকে সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন কমিটির পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশে (একই দিনে) ডি এম সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন কমিটির উদ্যোগে “শিকড়” শিরোনামের ম্যাগাজিনের মোড়ক উন্মোচন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ডি এম হাই স্কুলের পরিচালনা কমিটির সভাপতি জিয়াউল বারী চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও বিদ্যালয়ের শিক্ষক এমদাদুল হক চৌধুরী তরুণ ও আল মামুনের যৌথ পরিচালনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী আরিফুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিয়ানীবাজার উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মৌলুদুর রহমান, আলীনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ মামুন।

ঢাকাউত্তর মোহাম্মদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহফুজুর রহমান মোল্লা, বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, প্রবীন মুরব্বী হারুন হেলাল চৌধুরী, বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি ফখরুল আলম চৌধুরী, সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন কমিটির অন্যতম সদস্য রাসেল হেলাল চৌধুরী শ্যামল প্রমুখ । বিশ্বের ইতিহাসে সর্বপ্রথম কোন পদ-পদবী বিহীন এরকম সর্বাঙ্গীন একটি অনুষ্ঠান সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় সফল এবং সার্থক হওয়ায় সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে এবং ভবিষ্যতে একই ভাবে বিদ্যালয়টির ৭৫ বৎসর পুর্তীর আশাবাদ ব্যক্ত করে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করা হয় ।


আবহাওয়া

সিলেট
26°

অ্যাপস

সামাজিক নেটওয়ার্ক

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি